প্রয়োজন আর বিলাসিতা এক জিনিস নয়

প্রকাশিতঃ 10:15 am | November 21, 2018 | ২১৫

ইসলাম বলে নারীর ক্যারিয়ার তার ঘরে, বাহিরে নয়। এ ব্যাপারে রাসুলুল্লাহ (সা.)এর হাদীস, সাহাবা(রাঃ)দের দৃষ্টান্ত, উলামাদের বক্তব্য ১৪০০ বছর ধরে সুবিদিত। কোন সত্যপন্থী আলেম নারীদের  ঘরের বাহিরে কাজ করার ব্যাপারে অনুমতিজ্ঞাপক ফাতাওয়া দেননি।

সেকুলারদের কথা বাদই দিলাম অনেক প্র্যাক্টিসিং মুসলিমাহ দাবিদাররাও নিজেদেরকে ক্যারিয়ারিস্ট ছাড়া যেন ভাবতেই পারেন না। ক্যারিয়ার গড়তে হবে, নিজের পায়ে দাঁড়াতে হবে, হেন করতে হবে তেন করতে হবে কতো যুক্তি তাদের। মুসলিম নারীদের ক্যারিয়ার তার ঘরে, বাহিরে নয়। এটাই ইসলামের দাবি। কারো মানতে ইচ্ছা হলে মানুক, ইচ্ছা না হলে মানবে না। হাশরের ময়দানেই বুঝা যাবে আল্লাহ্‌র হুকুমের বিপরীতে নিজের যুক্তি দিয়ে ইসলাম বুঝার ফল। আল্লাহ্‌ সবাইকে সহিহ বুঝ দান করুক।

“হিজাব করে মহিলারা পুরুষদের সাথে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করতে পারবে”
     – একটি বহুল প্রচলিত শয়তানি ধোঁকা। 

অতঃপর নারী জাতির সেই পুরনো উক্তি “মেয়েরা কি পড়াশোনা করছে ঘরে হাত পা গুটিয়ে বসে থাকার জন্য”, “হিজাব করে মেয়েরা কেন বাহিরে কাজ করতে পারবে না?” ইত্যাদি। অবশ্যই নারী ডাক্তার, নার্স, নারী টিচার প্রয়োজন নারীদের জন্যই। এইজন্য নারী শিক্ষা অবশ্যই প্রয়োজন।

কিন্তু আমাদের সিস্টেমটা এমন যে নারী সারাজীবন শিক্ষা অর্জন করার তাকে এমন পরিবেশে চাকরি করতে হয় যে পরিবেশকে ইসলাম হারাম ঘোষণা করেছে। যেখানে পুরুষ সহকর্মী পাশে বসা থাকে ওই পরিবেশে হিজাব করে চাকরি করার কথা বলা লেইম জোকস ছাড়া কিছুই না। হইত আপনি হিজাবের সংজ্ঞা বুঝেন না, আর না হয় শয়তানি ধোঁকায় আপনি আক্রান্ত।

একটা মা খুব ভালো করেই জানেন তার অনুপস্থিতিতে তার বাচ্চাকে কাজের মেয়ে বা বুয়া কিভাবে লালনপালন করবে। অথচ তথাকথিত ক্যারিয়ারের দোহাই দিয়ে এখনকার কিছু মায়েরা তাদের সন্তানদের দেখাশোনা করার পরিবর্তে সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত অফিস করে তার ক্যারিয়ারের মর্যাদা(?) রক্ষা করে।অথচ তার স্বামীর ইনকাম দিয়ে তাদের সংসার খুব ভালো করেই চলে যেত। টাকা রোজগারের জন্য সন্তানকে ঘরে কাজের লোকের কাছে ফেলে রেখে তার বাহিরে কাজ করতে যাওয়ার কোনই প্রয়োজন ছিল না।

যারা গার্মেন্টসে চাকুরী করেন, কম- বেশি তাদেরটা প্রয়োজনের তাগিদেই! কিন্তু, কর্পোরেট ওয়ার্ল্ডে যারাআছেন, তাদের অধিকাংশই বিলাসিতাকে আরেকটু বাড়ানোর জন্য চাকুরীতে নিজেকে নিয়োজিত করে থাকেন। 

আমাদের প্রতিযোগিতা হবে, জান্নাতী তথা অনুকরণীয়দের সাথে, “সেকুলারদের” সাথে নয়!কোনভাবেই নয়! কখনোই নয়! “প্রয়োজন” আর বিলাসিতা এক জিনিস নয়। কেননা প্রয়োজন পূরনের জন্য তার বাবা বা স্বামীই যথেষ্ট।