“পরিচ্ছন্ন ময়মনসিংহ নগর গড়তে টিটু’র নতুন আয়োজন”

প্রকাশিতঃ 3:16 am | November 21, 2018 | ৪০৪

যত্রতত্র ময়লা-আবর্জনা ফেলা বন্ধে পথচারী কর্তৃক আবর্জনা নির্দিষ্ট জায়গায় ফেলার জন্য ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশন শহরের বিভিন্ন রাস্তায় আবর্জনার পাত্র স্থাপন করেছেন।

ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশন’ এর প্রশাসক মো. ইকরামুল হক টিটু’ র নির্দেশে ছোট ছোট ময়লা- আবর্জনা সমুহ ডাষবিনে ফেলার অভ্যাস গড়ে তোলতে সবাইকে সচেতন করছেন।

মঙ্গলবার (২০ নভেম্বর) রাত ১২ টায় নগরীর গাঙ্গিনারপাড়, নতুন বাজার এলাকায় দেখাযায় সিটি কর্পোরেশন স্বাস্থ্য শাখার কর্মীরা প্রচার-প্রচারনার পাশাপাশি ময়লা- আবর্জনা সমুহ ডাষবিনে ফেলার জন্য সকলকে এগিয়ে আসাার আহবান জানান।

সিটি কর্পোরেশন সুত্রে জানাযায়, যন্ত্রনা সহ্য করে নাকে কাপড় দিয়ে পথ চলার পরিবর্তন ঘটেছে। মো. ইকরামুল হক টিটু পৌরসভার মেয়র থাকাকালীন সময়ে পূর্ব ঘোষনা অনুযায়ী সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে রাতে ময়লা-আর্বজনা সরিয়ে নগর পরিচ্ছন্ন নগর গড়তে অক্লান্ত পরিশ্রম করে চলছে পরিচ্ছন্ন কর্মীরা।

ইতিবাচক এ পরিবর্তনের উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছে শহরের সকল শ্রেণি পেশার জনগন। পরিচছন্ন কর্মীরা সন্ধ্যার পর বিভিন্ন সড়ক ঝাড়– দিয়ে ময়লা আর্বজনা জড়ো করে, পরে গাড়ি এসে ময়লা তুলে নিয়ে রাতেই শহরের দুরে ভাগাড়ে ফেলা হচ্ছে। সকালে ঘুম থেকে উঠে পৌরবাসী পরিচ্ছন্ন নগর উপভোগ করছে। সকালে প্রাত:ভ্রমনে বের হওয়া অনেকেই স্বাচ্ছ্যন্দে যাতায়াত করছে। সময়োপযোগী সিদ্ধান্ত থেকে শুরু হয়েছে রাতে ময়লা পরিস্কার করে পরিচ্ছন্ন নগর গড়ার স্বপ্ন।

শহরের পাটগুদাম ব্রীজ মোড়, স্টেশন রোড, গাঙ্গিনারপাড়, নতুন বাজার, টাউন হল মোড়সহ শহরের বিভিন্ন সড়কগুলো পরিচ্ছন্ন করতে সড়কের পার্শ্বে হলুদ ও সবুজ রঙ্গের ডাস্টবিন স্থাপন করা হয়েছে।

সেনেটারী ইন্সপেক্টর দীপক মজুমদার বলেন, রাত সাড়ে ১০টার মধ্যে নির্দিষ্ট স্থানে ময়লা ফেলে রাতেই আবর্জনা অপসারণের লক্ষে সিটি কর্পোরেশন কাজ শুরু করেন। এ কাজে প্রচার-প্রচারনার পাশাপাশি সকলকে এগিয়ে আসাার আহবান জানান তিনি।

সিটি কর্পোরেশন’ এর প্রশাসক মো. ইকরামুল হক টিটু প্রশংসনীয় উদ্যোগের কথা নিয়ে বলেন, আমরা পরিচ্ছন্ন ময়মনসিংহ নগর গড়তে চাই। রাত্রিকালীন সময়ে আবর্জনা অপসারণের সিদ্ধান্ত অনেক চিন্তাপ্রসুত। শহরবাসীর সহযোগিতায় কাজটি আরো সুন্দর ও সুচারু ভাবে করা সম্ভব হবে। সকলকে মনে করতে হবে এ শহর আমার এর পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন রাখার দায়িত্ব আমার। তাই প্রতিটি ওয়ার্ডে মাইকিং, লিফলেট বিতরণ, জনসচেতনতা মুলক কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছি। আশাকরি, এ উদ্যোগটি ফলপ্রসূ হবে।